কবিতা

গোলাম কবির এর কবিতা || কোনো এক কাকতাড়ুয়া

দুচোখে প্রবল বর্ষার বানভাসি জল নিয়ে তোমার প্রতীক্ষায় বসে আছি কখন ডেকে নেবে কাছে। আমার অপেক্ষা তো আর হয় না শেষ!
এখন আর ভালো লাগে না কিছুই!
এই শহুরে কোলাহল আর জনস্রোতের মধ্যে নিজেকে ভীষণ রকম একা মনে হয়! মনে হয়
আমি যেনো কোনো মানুষ নই এখন আর! নিজেকে মনে হয় সোনালি ধানের ক্ষেত পাহারায় নিয়োজিত কোনো এক কাকতাড়ুয়া যেনো!
এ শহরে আমার দম বন্ধ হয়ে আসছে,
চারপাশে তাকালেই চোখে পড়ে খালি
সারি সারি ইট পাথরের দেয়ালে ঘেরা বাড়ি ঘর আর তারই ভিতরে প্রকৃতিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে উপহাস করে গড়ে তোলা বনসাই এর বাগান এবং এরই মধ্যে মানুষরুপী কতো দুপেয়ে জন্তু! যারা কিনা অবলীলায় নিজের মনুষ্যত্বকে বিসর্জন দিয়ে গড়ে তুলেছে সম্পদের পাহাড়
আর মিথ্যা অহংকারের প্রাসাদ। কেউ কেউ খুব দ্রুতই ওপরে উঠার সিড়ি পেয়েছি মনে করে
পড়ে যাচ্ছে গভীর খাদে অথচ তা বোঝার ক্ষমতাও নেই তার! কেউ কেউ একটুকরো রুটি কিংবা একটুখানি ভাতের জন্য সারাদিন খেটে যাচ্ছে গাধার খাটুনি! পরম মমতায় স্ত্রী সন্তান দের মুখের আহার যোগাবে বলে স্বপ্নে বিভোর হয়ে প্রখর রৌদ্রের চোখ রাঙানিকে উপেক্ষা করে নিরন্তর কষ্টই করে যাচ্ছে! কেউ বা হয়তো বা নিজেকেই বিক্রি করছে বেঁচে থাকবে বলে!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *