কবিতা /বাপ্পি

তুমি শুদ্ধ হতে পারোনি || শর্মি ভৌমিক।

শুক্লা দ্বাদশীর চাঁদ উঠেছে আজ!
ঝলমলে আলোয় স্নান করে
শুদ্ধ করতে চাই যাবতীয় ভুলগুলো।
আমাকে ভালোবেসে
তুমিতো ভুল করেছিলে বিস্তর শেষমেশ!
সেই ভুল শোধরাবে বলে,
অমাবস্যার চাঁদের মতো
কোথায় হারালে সঙ্গে নিয়ে সীমাহীন ক্লেশ!
বাতাসের ঠোঁটে খবর এলো,
আমি নাকি ছিলাম
ভুলে ভরা নষ্ট ভালোবাসা তোমার!
দুঃখ পেলেও
বাধা হয়ে দাঁড়াইনি সমূহ শুদ্ধ শুচিতার!
ভুল ভালোবাসার অজুহাতে তুমি,
বেমালুম ভুলেও গেলে
হৃদয়ের পবিত্র ভালোবাসা আমার !
খন্ড খন্ড দুঃখগুলো
কষ্টের পাহাড় কেটে,
আমার বুকের ভেতরে
গড়ে তুললো বেদনার ভয়াল এক নদী।
আমি বেদনার জলপানে,
ক্রমশ নীল হতে হতে
নীলকন্ঠী হলাম!
নদীর উদাসী হাওয়ার কানে তবুও বলেছি
শুদ্ধ হও,
তুমি শুদ্ধ হয়ে যাও নিষ্কলুষ!
ব্যথাভরা এই জনম
না হয় আমার একারই থাক!
সান্ত্বনা একটাই,
তুমিতো শুদ্ধ হচ্ছো!
তুমিতো আমায় ছেড়ে খুব ভালো আছো!
আমি এতটুকু অভিযোগ করিনি।
ষড়ঋতুর মতো
তোমার আগমনী বাসন্তী হাওয়াকে
স্বাভাবিক বলে মেনে নিয়েছি।
ফুসফুসের ছোট্ট কুঠরিতে,
মাখিয়ে রেখেছি হঠাৎ পাওয়া
অমিয় সাতরঙা বাসন্তী হিন্দোল।
আজ এতোকাল পর
আবার কি কথা বলে যায় সে!
পাতা ঝরার দিন
আজো শেষ হয়নি তোমার!
একি শুনি বাতাসের বিনম্র মূর্ছনায়?
তুমি শুদ্ধ নও!
তুমি শুচি নও!
কেন তবে শুদ্ধ হলে না তুমি?
আমারতো ঐটুকুই ছিলো আত্মতৃপ্তি!
শুদ্ধসুখে ভালো আছো তুমি,
কষ্টভরা সুখে সেইতো ছিলো আমার সান্ত্বনা!
তাইতো কিঞ্চিৎ অভিযোগও করিনি!

One Reply to “তুমি শুদ্ধ হতে পারোনি || শর্মি ভৌমিক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *