কবিতা

বিউটি আক্তার এর কবিতা || মানবতার বার্তা

 

হে বিশ্ব বাসি,ঘুমিয়ে কেন?
দেখছো না চক্ষু মেলে,
মনুষ্যত্ব হারিয়ে গেছে,ভুল মানুষের ভীড়ে।
মানুষ,মানুষকে মারছে,বিনা অপরাধে,
সহ্য করছে নিজের মনে,মরছে ধুকেধুকে!
মানবতা বোঝাও না তোমরা?
শুধু বুঝে বুঝ নিজে।
শত জনতার মাঝে দেখছো ? পিটিয়ে
করছে খুন,লুটছে নারীর ইজ্জত,জোড় করে ছিনিয়ে নিচ্ছে ছিনতাইকারী দল?
কত কষ্ট করে মুনাফা অর্জন করে,এইকি তার ফল?
চোর-ডাকাত বেরে গেছে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় না রাখে, দেশের জনগণের !
রাতের নিদ্রা কেরে নেয়,অশান্তির ঢেউ বয়ে দেয়,
লুটকারির ভয়ে; এই সমাজের ঘরে।
আসো না কেউ,কেউর পাশে;সবাই যদি একজোট হই; করবে শত্রু কি? কিছুই না করতে পারলে শত্রুই হবে পরাজয় !বিজয়েরেই হবে জয়!
চক্ষু থাকতে অন্ধ থাক ছি ছি ছি,
আর থাকবা কতকাল?
তোমার ছেলে মেয়েকে মারবে এমনিই একদিন যখন!
তা কি তোমরা ভেবেছো ?
তখন,করবে তুমি কি?বলো,চক্ষু মেলে দেখ একবার,পিছনে ফিরে চাও তাকিয়ে !
দেখ, মনুষ্যত্বের দরজা খুলে!
মানবতার হাত দাও বাড়িয়ে!
চুপ করে থেকো না আর,চুপ করে থেকোনা আর তোমরা, দূরে সরে দাঁড়িয়ে! ভয় পাচ্ছো ? কিসের ভয়?দেখছো না?
ওরা জালিম,জুলুম,অত্যচারী ব্যেবিচারিনী ঘুষখোর ,খুনি, লম্পট,চাদাবাচ ,ছলোনাবাচ,মিথ্যাচারী। ন্যায়বিচারের আশায় মানুষ এদিক ওদিক পানে। ঘুরছে এরধার ওরধার, ভিজচ্ছে গামে কাপড় চোপোর ।পাচ্ছে কি?কেউ পাচ্ছে,কেউ পাচ্ছে না,কেউ আবার অল্প সল্প কিছু, বহুদিন পর। বেশি নেই ন্যায়বিচার।পাশে থাকতে হবেনা মোদের? কত স্বপ্ন ভেঙ্গে ঝরছে, অঝোরে চোখের জলে।
মানবতার হাত দাও না,একবার বাড়িয়ে। দেখোইনা !
দেখো কি হয় তাতে!এমন বিপদ আসতেও তো পারে একদিন,তোমারও প্রকোষ্ঠরে? ভাবো;ভেবে দেখ?
মৃত্তিকার বুকে মাথা রেখে!ভুল বুঝো না আমায়?
ফট,ঠক,ঝোট-চোর,বাটপার,বেড়ে গেছে মনুষ্যত্বের কারণ।
কই!করছো না তো’ কেউ কাউকে বারণ?
কে শুনে কে কার কথা,পায় না মনে ভয়
নেয় না কেউ কাউর খবর।
ভাবছো ? টাকা আছে যার,ক্ষমতা তার,করবে মোদের পার, মনুষ্যত্ব কিবা দিবে,হবে কি আর।
টাকার নিশায়,ঘুরছে মাথা,হাঁটছ পিছু পিছু,করছো মানুষকে খুন,শতো পয়সা কামাই করছো,
দিচ্ছ দেহের ছান।
আরাম আয়েশে কাটিয়ে দিচ্ছ মহাতরঙ্গে দিন।
শত পয়সা রোজগার করতে পেকে যায় দাঁড়ি।
অশত পায়সা রোজগার করলে তেমন হয় না দেরি;
হয়ে যায় তাড়াতাড়ি,বানাও গাড়ি বাড়ি।
করছ বাড়ি; চালাও গাড়ি,নিত্য নতুন খায়ও ভোজ,
এত কিছু কে বা দিবে,আর কোথায় পাবে এমন সুখ!
দেনা-পেনা,ধার,ঋণ থাকেনা,থাকো কত সুখে।
এই ধরণীর বুকে,যা চাও তাই পাও, টাকার বিনিময়ে ।
সত্যিই তুমি পাবে। বলো তো,পাবে কি বিধাতাকে?
হিসেব নিকেশ ভুলে যেওনা,আল্লাহ্ আছে ভবে!
ছাড়বে না মোদের কোন কাজিই!
তিনি যে অন্তর্যামী ! তিনি সব কিছু যানেন,যায়েই করি,
মাটির এই অবনীতে।বিচার হবেই একদিন আখিরাতে।
সেই দিন করবে তুমি কি?তাই, জ্ঞানী গুণী বলেন,
যার শেষ ভালো,তার সব ভালো।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button