জাতীয়

শান্তি প্রতিষ্ঠা ও টেকসই উন্নয়নের জন্য হাতপাখায় ভোট দিন : সৈয়দ রেজাউল করীম

বরিশাল প্রতিনিধি: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম বলেন- দেশে আজ চরম অশান্তি বিরাজ করছে। নীতিহীন নেতাদের হাতে দেশের ক্ষমতা থাকলে দেশে স্থায়ী শান্তি ও টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয়। তাই সময় এসেছে এখন হাতপাখাকে বিজয়ী করার।

বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় নলছিটি চায়না মাঠে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নলছিটি উপজেলার উদ্যোগে ঝালকাঠী-২ আসনে হাতপাখার সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী দলের সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীমের নির্বাচনী পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন তিনি।

পীর সাহেব চরমোনাই আরো বলেন, দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের মতামতকে উপেক্ষা করে সংসদ বহাল রেখে নির্বাচন অনুষ্ঠানের কারণে আমরা নিরপেক্ষ নির্বাচন নিয়ে শঙ্কিত। তিনি নির্বাচনী পরিবেশ সুন্দর, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ রাখার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান। এছাড়াও গতকাল ১২ জানুয়ারী খুলনা-৩ আসনে ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী অধ্যক্ষ মোজাম্মেল হক সহ নেতাকর্মীদের উপর ছাত্রলীগের হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। এবং এধরণের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলে পরিণাম ভাল হবেনা বলে হুশিয়ারী দেন তিনি।

পথসভায় হাতপাখার বরিশাল-৫ ও ঝালকাঠী-২ আসনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী মুফতী সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম শায়েখে চরমোনাই বলেন, যাদের মধ্যে আল্লাহর ভয় ও পরকালে জবাবদিহীর ভয় নেই, তাদের দ্বারা জনগণের সেবা আশা করা যায়না। জনগণের জন্য বরাদ্ধকৃত সম্পদ আত্মসাৎ করতে তারা কুণ্ঠাবোধ করেনা। সুতরাং, আপনাদের উচিত হবে একজন আল্লাহভীরু, সৎ, যোগ্য প্রার্থী হিসেবে আমাকে হাতপাখা মার্কায় বিজয়ী করা।

মুফতী ফয়জুল করীম আরো বলেন, আমরা বিজয়ী হলে জনগণের জন্য বরাদ্ধকৃত সম্পদ শতভাগ জনগণের জন্যই ব্যয় করা হবে, এ ব্যাপারে আপনারা নিশ্চিত থাকতে পারেন। তাই এবার পরিবর্তনের শপথে, উন্নয়নের শপথে হাতপাখাকে বিজয়ী করুন।

পথসভায় আরো বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলনের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা ও বিশিষ্ট বক্তা নওমুসলিম আলহাজ্ব ডা. সিরাজুল ইসলাম সিরাজী, ঝালকাঠী জেলা সভাপতি হাফেজ মুহাম্মাদ আলমগীর হোসাইন, নলছিটি উপজেলা সভাপতি মাওলানা জাকির হুসাইন, সেক্রেটারী মাওলানা জাকির হুসাইন সহ নলছিটি উপজেলা ইসলামী আন্দোলন, ছাত্র আন্দোলন, যুব আন্দোলন, শ্রমিক আন্দোলন নেতৃবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *