কবিতা
Trending

সামান্তা মিজান এর কবিতা || প্রিয়তম অতৃপ্তি

তোমার সাথে আমার ঘর হবে না
তবু তোমার শীতের ভোরে
শোলমাছ-শীমে জমে যাওয়া ঝোলেমাখানো মাখোমাখো ঘরনি হবো!
বারান্দায় পিঠ পেতে দেওয়া আরামদায়ক রোদে
ঝাঁজওয়ালা হিংসুটে সর্ষে তেল হয়ে পেছন থেকে জড়িয়ে ধরে তাড়াবো তোমার হিমের সাথে মিতে।
তুমি মুচকি হেসে বলবে,’ কি জংলী প্রেমিকা হয়েছে!’
আমি তখন পুরোপুরি তোমার ভোরের কফির শেষ চুমুক!
গা সওয়া গরম আর তৃপ্তির প্রতীক হয়ে নিঃশব্দে খানিক মুচকি হেসে তোমায় দেখবো।
আমার চোখের মায়ার রোদে ভিজে যাবে তোমার সংসারী উঠোনের একধার।
তুমি চুপিচুপি রাগী ঘুমন্ত মায়ের অষ্টম বর্ষীয় আত্মজ হয়ে উঠবে।
পালাতে চাইবে একমুহূর্তের জন্য ঘুম -ঘর- নিয়ম ছেড়ে।
কিন্তু পারবে না, তোমাকে বেঁধে দিবে প্রারম্ভিক সংসারি শিকল।
আমি তখন নিরাশার আশায় আঁচল তলে লুকিয়ে নেবো নেবুপাতা, দুটো কলমিলতা আর একখানি বুনোফুল।
পথের ধূসর ধূলো আর লিলুয়া হাওয়া লোফালুফি করবে আমার কাঁচকি মাখা নেবুপাতা ঘ্রাণে।
লজ্জাবতী কলমিলতায় মাখোমাখো প্রেম পাবে প্রেমিক পুরুষ ঝাঁজে ঘ্রাণে মাতিয়ে রাখা কাঁচা লংকা।
তুমি হয়তো হঠাৎ কোনদিন এ পথেই যাবে!
কোলে রাখা ফাইল পাশে রাখা দায়িত্ব থেকে একচিমটি হারিয়ে যাবে হুহু হাওয়া মেখে।
ভাববে এই হাওয়ায় কি জানি আছে!
বড্ড মাতাল লাগে!
তোমার দায়িত্ব পাশ ফিরে বিরক্তি নিয়ে বলবে,’আমি একা কি করে সামলাই?আশ্চর্য! ‘
তুমি পরমাশ্চর্য থেকে ফিরে যাবে রোজকার দামী বিলাতী ভোজে।
তবু কি একটা ভেবে পেছন ফিরবে কিন্তু কি দেখবে তা ভেবে না পেয়ে ফিরে যাবে অমরায়।
পেছনে গড়াগড়ি যাবে তোমার বোহেমিয়ান তাবু, দুটো আধপোড়া লাকড়ি আর কোন বনলতার ধোঁয়া তুলে রান্নার তাপে মাখা ফিনফিনে ঘাম।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button